Skip to main content

আসছে দেহলিজের সংখ্যা - ৬

 প্রকাশ পাচ্ছে দেহলিজ-৬


করোনাকালের শুরুতে প্রকাশ পেয়েছিলো, দেহলিজ-৫ ; তেমন উচ্চবাচ্য হয়নি, ইচ্ছে করেই করা হয়নি, মানুষের কাছে বেঁচে থাকাই ছিলো একটা কবিতা । লকডাউন শুরু হলো, মানুষ আটকা পড়লো ঘরে । শুরু হলো ঘরে বসে লাইভ টেলিকাস্ট । দেহলিজে - নতুন গ্রুপ একটিভিটি বেড়ে উঠেছে । তার একটা খসড়া এই রকমঃ 

প্রিয় কবি বন্ধুগণ
 
আজকের এই বিশেষ অবসরে, আমার কিছু যত্নে লালিত প্রস্তাব রাখার অভিপ্রায়ে , এই পোস্টের অবতারণা  । দেহলিজ পত্রিকার সম্পর্কে এই  বিষয়টি একটা অভিনব ও যুগান্তকারী বলেও  মনে হয় আমার ।

দিল্লির যানজট, লকড ডাউন,  অফিস ব্যস্ততা, বাংলা ভূখণ্ডের দূরত্বে ভৌগলিক অবস্থান , উৎসাহী কবির স্বল্পতা বাংলা চর্চার ক্ষেত্রে একটা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে । তদুপরি ভাষার বিবিধতা , জাঠ হরিয়ানভি ঠাট,  পাঞ্জাবী কালচার আগ্রাসন করে নিয়েছে অনেক কিছু । বর্তমান দেশব্যাবস্থা, রাজনৈতিক সমীকরণ সাহিত্য দিল্লি-বক্ষে সাহিত্য প্রয়াসের প্রতিকুল সততই । এই রকম চ্যালেঞ্জ নেওয়াটাও একটি সাহসী পদক্ষেপ , আমাদের একত্রিত প্রয়াসে  আমরা বিভিন্ন সাহিত্য আড্ডা ও অনলাইন পত্রিকার মাধ্যমে তবুও তুলে ধরেছি । দেহলিজের এই অগ্রগতি আমাদের একটা আশা যোগায় ।  একটা সন্তোষ দেয় যে আমরা  দেহলিজের পত্রিকার যাত্রার শরিক ।

আমরা পরস্পরকে অভিনন্দন করতেই পারি যেখানে দেহলিজ ৫ম সংখ্যা বের হলো এবং দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে আমি সেই ফিডব্যাক পাচ্ছি । যদিও বাংলা সাহিত্যের রাজনীতি হেতু,  অনেকেই প্রকাশ্যে এর প্রশংসায় এগিয়ে আসছেন না, তবু মেসেঞ্জারে, ব্যক্তিগত ফোন আলাপে কিছু পরিচিত কবি লিখতে ডাক না পাওয়াতে খেদ প্রকাশ করেছেন ।

এই ভাবে, দেহলিজের আগামী সংখ্যার প্রস্তাব চলে আসে । ৬ষ্ঠ সংখ্যা একটু আলাদা করে করার ইচ্ছে রাখি । যেহেতু আমি একক ভাবে কাজ করি, তারিখ দিয়ে ফেলার পর খেটেখুটে দেহলিজ পত্রিকাটি টাইমে বের করতে পারলেও,  আমাদের গ্রুপ একটিভিটি ড্রাস্টিক ভাবে হ্রাস পেয়েছে । একটিভিটি বৃদ্ধি তখনই হতে পারে, যখন সবাই পত্রিকাতে কিছু কিছু ক্রিয়েটিভ সংযুক্ত করতে পারবেন, এবং নিজের নিজের ক্রিয়েটিভটির শ্রেয় তারা পাবেন । আমার একার অভিজ্ঞতার ভরসায় ও থাকতে হয়না দেহলিজের , দেহলিজ সাহিত্য মানে বেড়ে উঠুক, দিল্লিতে বাংলা সাহিত্যের একটা ইকো সিস্টেম গড়ে উঠুক এইটুকু স্বপ্ন আমি দেখি ।

আগামী সংখ্যার কিছু বিভাগ তাই দায়িত্ব সহকারে ডেলিগেট করে দেওয়া হবে । কে কতটা সময় পাবেন তার উপরে নির্ভর করছে, সেই বিভাগটা কি হবে । যদি কোন বিভাগ দেহলিজে না থাকে, সেই বিভাগ তৈরি করা হবে । বিভাগীয় সম্পাদক, নিজের সিদ্ধান্তে এক্সক্লুসিভলি সেই বিভাগে কাজ করবেন । তিনিই লেখা সংগ্রহ করবেন, সম্পাদনা করবেন । একাধিকের সম্পাদনায় বের হবে দেহলিজ ।

বিভাগ হিসাবে, আমি পীযূষকান্তি বিশ্বাস, কবিতার ও বুক রিভিউ ( বাংলা ও হিন্দি )  বিভাগ হাতে রাখছি । এছাড়া আমি পত্রিকার এডমিনিস্ট্রেটিভ কাজ -  যেমন ইস্যু ম্যানেজমেন্ট, পেজ সেটআপ, ওয়েবসাইট এডমিনিস্ট্রেশন, কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট,  ডোমেন রেজিস্ট্রেশন, প্রমোশন, বিজ্ঞাপন ইত্যাদি সামলাবো ।

কবি ঔরশীষ ঘোষ গদ্য সেকশন নিতে সম্মতি দিয়েছেন । গদ্য অর্থাৎ কবিতা নিয়ে গদ্য, মুক্ত গদ্য, এমাসের কবি, কনটেম্পোরারি কবিদের উপর বিশেষ চর্চা , এপার বাংলা ও ওপার বাংলা কবিতার বিশেষ ধারাগুলি নিয়ে বিশেষ ড্রাইভ দেবেন , লেখা সংগ্রহ ও তার দেখাশোনা করবেন ।

আমাদের কবিতা আড্ডাগুলি হোস্ট করার জন্য অনলাইন ও অফলাইন একজন প্রেসেন্টার/ মোডারেটর  দরকার যে এই কাজটা করতে পারবে সেই হিসাবে প্রথমেই কবি ও প্রেসেন্টার মৌমিতার নাম মনে আসছে । আমাদের বেঁধে বেঁধে রাখার জন্য যা করার মৌমিতা মিত্র করতে পারবেন বলে আমার বিশ্বাস ।

বাংলা লিটল ম্যাগাজিন ও জেলায় জেলায় লিটল ম্যাগাজিনের সেই সমস্ত কবিদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে এই সময়কার পরিশীলিত কবিদের কবিতার কাজ দেহলিজে রাখার ইচ্ছা আমার ।  এতে একটা সংযোগ ব্যবস্থা যেমন হয়, সেই হিসাবে, আমাদের লেখালেখির ব্যাপারে দূর জেলাতেও দিল্লির উপস্থিতি নিশ্চিত করা যেতে পারে ।  এই ব্যাপারে আমার কবি সুদীপ মণ্ডলের নাম মনে আসছে । যদি সুদীপ রাজী হন, আমি খুব খুশী হবো, আমাদের কাজ সহজ হয়ে আসে ।

পত্রিকার প্রকাশিত লেখাগুলির একটা থিম ও চিত্র নির্বাচন একজন চিত্রশিল্পীর সাহায্য নেওয়া যেতে পারে । এই ব্যাপারে কবি ও চিত্রকর মোনালী রায় ছাড়া অন্য কারো নাম মাথায় আসছে না । আমার এটাও মনে হয়েছে, মোনালীর ভাষা জ্ঞান আমাদের ভিতরে অন্যতম । তাই  ইংরাজি বিভাগটাও নিজ দায়িত্বে তুলে নিলে একটা দুরন্ত ব্যাপার হয় ।

এই এতোগুলো কাজ আমি ভাবতে  পারলাম । এইটা প্রাথমিক ভাবে আমার ভাবনা হলেও, এইটা আলাপ আলোচনা করে ঠিক করে নেওয়া দেহলিজের পরবর্তী সংখ্যা কি রকম হবে ।  যদি এর বাইরে কোন বিভাগ নিয়ে আমরা ভাবতে পারি,  নিজের নিজের মতামত জানাবেন । একটা মূল থিম, আমাদের ক্রিয়েটিভটি যেন এই কটি বিভাগেই থেমে থাকে না ।।

এই আলোচনার একটি সুচিন্তিত মতামত আশাকরি সবাই দেবেন । ভালো খারাপ নিয়ে ব্রেনস্টর্ম , চেল্লাচেল্লি করা হোক ।  হোক  হৈ চৈ ।  


ধন্যবাদ , দেখা হচ্ছে নতুন পরিসরে ।

পীযূষকান্তি বিশ্বাস ।


Comments

Popular posts from this blog

প্রকাশ হলো দেহলিজ -৬

দেহলিজ-৬ প্রকাশিত হলো   ক্লিক করুন | Click Here   বহু প্রতিক্ষার পর, ফির`সে দেহলিজ । প্রথমেই কৃতজ্ঞতা জানাই কবি ও লেখক বন্ধুদের । তারা ভরসা রেখেছেন, কঠিন সময়ে যোগাযোগ রেখেছেন, ফোনে কথা বলেছেন । এই করোনা কালে, বেঁচে থাকাই হলো একটা গল্প, লড়াই করে যাওয়াই একটা কবিতা । দিল্লি এনসিআর এর কবি বন্ধুরা আমার সঙ্গে ছিলেন, তারা আমার হয়ে দেহলিজের লেখা নিয়েছেন, নিজেরা এডিট করেছেন । দিল্লির এই রুক্ষতার আবহেও এতসুন্দর একটা সাহিত্য উপস্থাপনা আমাদের দিয়েছেন, আমি সেই দেহলিজ সহযোগীদের কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই । শুধু দিল্লি নয়, মেদিনীপুর, শিলিগুড়ি, বহরমপুর, হাওড়া, বাঁশদ্রোনী থেকেও আমাদের সঙ্গে থেকেছেন, ধন্যবাদ জানাই সেইসব লেখক ও কবিদের ।    এই সংখ্যায় কিছু নতুন টেমপ্লেট নেওয়া হলো । ডেস্কটপ ও মোবাইল থিম আলাদা করা হয়েছে । নতুন করে সাজানো হয়েছে মেনু লিংক । অটোমেশন করা হয়েছে । সংখ্যায় বৈচিত্র নিয়ে কিছু কাজ করা হলো । কবিতা ছাড়াও রাখা হলো মুক্তগদ্য, অনূদিত নাটক, বই রিভিউ, স্মৃতিচারনা ও ছোট হল্প । আর একটি বিষয় নিয়ে এই প্রথম কাজ করা হলো সেটা হলো - কবিতা ও চিত্রকলার মিলনসংহার । ৬ জন কবির কবিতাকে উডকাট ব্লাক এন্ড হো

দেহলিজ-৭ প্রকাশিত হলো

সুধী দেহলিজ-৭ প্রকাশিত হলো https://dehlij7.blogspot.com/     বহু প্রতীক্ষার পর, ফির`সে দেহলিজ । প্রথমেই কৃতজ্ঞতা জানাই কবি ও লেখক বন্ধুদের । তারা ভরসা রেখেছেন, কঠিন সময়ে যোগাযোগ রেখেছেন, ফোনে কথা বলেছেন । এই করোনা কালে, বেঁচে থাকাই হলো একটা গল্প, লড়াই করে যাওয়াই একমাত্র কবিতা । দিল্লি এনসিআর এর কবি বন্ধুরা আমার সঙ্গে ছিলেন, তারা আমার হয়ে দেহলিজের লেখা নিয়েছেন, নিজেরা এডিট করেছেন, সংযোজনা করেছেন ।  দিল্লির এই রুক্ষতার আবহেও এত সুন্দর একটা সাহিত্য উপস্থাপনা আমাদের দিয়েছেন, আমি সেই দেহলিজ সহযোগীদের কাছে ধন্যবাদ জানাই । শুধু দিল্লি নয়, ঢাকা, কলকাতা, হাওড়া, মেদিনীপুর, শিলিগুড়ি, বহরমপুর, হাওড়া, বাঁশদ্রোনী থেকেও আমাদের সঙ্গে থেকেছেন, ধন্যবাদ জানাই সেইসব লেখক ও কবিদের ।   দেহলিজের এই সংখ্যায় কিছু নতুন কন্টেন্ট নিয়ে কাজ করা হলো । কবিতার সঙ্গে মেশানো হলো ছবি, ভাষ্কর্ষ ও ক্যামেরা ক্লিক । দৃশ্যময়তা ও টেক্সট একে অপরের জায়গা শেয়ার করা । নেওয়া হলো কবিতা নিয়ে আলোচনা । কবিরা কি ভাবছেন ? চিত্রকরেরা কি ভাবছেন এই ২০২১ এ দাঁড়িয়ে । যুক্ত করা হলো আন্তর্জাতিক কবি ও চিন্তকদের । যারা কবিতা, গদ্য ও বিশ্বসাহিত্য